quran

QURAN-চলুন কিয়ামত সম্পর্কে একটু জেনে নেই

(Quran)-সূরা: আল ক্বরিয়। এটি পবিত্র কোরআনের ১০১ নম্বর সূরা। এটি মাক্কি সূরা এই সূরার আয়াত সংখ্যা ১১ । আসুন দেখি মহান আল্লাহ্‌ এই সূরার মধ্যে কি সুন্দর ভাবে কিয়ামতের সম্পর্কে বলেছেন। এই সূরার প্রথম শব্দ আল ক্বরিয়া। আল ক্বরিয়া শব্দের অর্থ বিকট আওয়াজ প্রচন্ড শব্দ। সে আওয়াজ টা ভয়ংকর আওয়াজ

(Quran)-মহান আল্লাহ্‌ হুকুমে সৃষ্টির শুরু থেকেই ইসরাফিল ফেরেশতা দাড়িয়ে আছেন। তার কাজ হলো শিঙ্গায় ৩ টা ফু দেওয়া। আল্লাহ্‌ হুকুম দিলেই সে শিঙ্গয় প্রথম ফু দিবেন। আর প্রথম ফু দেওয়া সাথে সাথে পুরো পৃথিবীতে কেপে উঠবে। পাহার পর্ব যা আছে সবকিছু তুলার মত উড়বে।পৃথিবীতে যত বিল্ডিং আছ সে দিন সবকিছু তুচ্ছ তুচ্ছ হয়ে যাবে। মানুষ গুলো ছিটকে এদিক থেকে ঐ দিক পড়ে যাবে। সেদিন দুধের বাচ্চা রেখে মা পালাবে। সেদিন অনেক মহিলার পেটে দুই মাসের তিন মাসের বাচ্চা থাকবে।কিয়ামতের এই ভয়ঙ্কর কঠিন অবস্থা দেখে দুই মাসের তিন মাসের বাচ্চা ডেলিভারি হয়ে যাবে। সাগরের পানির মধ্যে দাউদাউ করে আগুন জ্বলছে থাকবে।

(Quran)-এর পর আল্লাহ্‌ ইসরাফিল ফেরেশতাকে বলবেন এবার দ্বিতীয় ফু দে।দ্বিতীয় ফু দেওয়ার সাথে সাথে পৃথিবীর সব মানুষ গুলো মরে শেষ হয়ে যাবে। আল্লাহ্‌ বলবেন হে মালাকুল মউত পৃথিবীতে আর কে আছে। সে বলবে হে আল্লাহ্‌ পৃথিবীতে একটা মানুষও নেই সব শেষ। শুধু আছে জ্বীন জাতী। আল্লাহ্‌ বলবেন যাও এবার জ্বীনদের সব শেষ করো। এর পর আল্লাহ্‌ বলবেন আর কে আছে। মালাকুল মউত বলবে শুধু ফেরেশতা আছে। আল্লাহ্‌ বলবেন যা এবার সব ফেরেশতা শেষ কর।সব ফেরেশতা শেষ। আল্লাহ্‌ বলবেন আর কে কে বল সে বলবে আল্লাহ্‌ আমরা শুধু ৩ জন কলিক বাকী।
১/মিকাই
২/জিব্রাইল
৩/ইসরাফিল
আর আমি আজরাইল।

এর পর আল্লাহ্‌ বলবেন যাও মিকাই জিব্রাইল আর ইসরাফিল এর জান কবস করে নিয়ে আয়। আর পর আল্লাহ্‌ বলবে আর কে কে আছে। আজরাইল বলবে হে আল্লাহ্‌ আর কেউ নেই, শুধু আমি একা আছি। এবার আল্লাহ্‌ বলবেন আজরাইল তুই মর। এই কথা শুনে আজরাই এর খিচুনি উঠে যাবে।জ্বর এসে যাবে। আজরাইল বলবে হে আল্লাহ্‌ আমি সবাইকে মারছি আমি মরব কেন। আল্লাহ্‌ বলবে কোন কথা নেই মর। আল্লাহ্‌ বলবেন জান্নাত এবং জাহান্নামের মাঝ বরাবর গিয়ে দাঁড়া। এর পর আজরাইল চিৎকার করে জান্নাত এবং জাহান্নামের মাঝে পড়ে মরে যাবে শেষ।

(Quran)পৃথিবীতে আর কেউ নেই। একমাত্র আল্লাহ্‌ ছাড়া ।এর পর আল্লাহ্ একা একা বলবেন হে পৃথিবী তোর বড়ো বড়ো গাছ গুলো কোথায়। হে পৃথিবী তোর বড়ো বড়ো নদী গুলো কোথায় । কোথায় সেই শাসক যারা পৃথিবীতে ক্ষমতা পেয়ে তার অপব্যবহার করছে তারা আজ কোথায় । আল্লাহ্‌ বলবেন কোথায় ফেরাউন , কোথায় নমরুদ , কোথায় আবুজাহেল। মনে আছে তো ইসরাফিল এর শিঙ্গয়া ফু দেওয়ার কথা ছিল ৩ টা কিন্তু তিনি দুইটা দিয়েছেন । আরো একটা দেওয়া বাকী। এর প্রথমে আল্লাহ্‌ আবার ইসরাফিল কে রুহ দিবেন। এর বলবেন হে ইসরাফিল তুমি তৃতীয় ফু দেও। ইসরাফিল তৃতীয় ফু দেওয়ার সাথে সাথে পৃথিবীর যেখানে যত মানুষ আছে সব মানুষ উঠবে। যাকে স্বাভাবিক কবর দেওয়া হয়েছিলো সে উঠবে। যে নদীতে ডুবে মারা গেছে সেও উঠবে যে আগুনে পুড়ে মারা গেছে সেও উঠবে এক কথায় সেদিন সব মানুষের ঘুম ভেঙ্গে যাবে । তারা ঘুম থেকে উঠে বলবে আমাদের ঘুম ভাঙ্গালো কে।

(Allah)-এভাবে সকল মানুষ সেদিন ঘুম থেকে উঠবে। সকলের ঘুম ভেঙ্গে যাবার পর সবাইকে একসাথে করা হবে । তার শুরু হয়ে বিচারের কাজ। সেদিন একমাত্র বিচারক হবেন মহান আল্লাহ্‌। প্রতিটি মানুষের হিসাব নেওয়া হবে । যার আমল নামা ভারি হবে সে সুন্দর ভাবে জান্নাতে প্রবেশ করবে । তারা সারাজীবন জান্নাতে থাকবে। আর যার আমল নামা হালকা হবে গুনাহ বেশি হবে তাকে জাহান্নামে নিক্ষেপ করা হবে । তারা জাহান্নামের আগুনে পুড়বে।

(Allah)-একটু চিন্তা করে দেখেন ভাই বোন এই পৃথিবীতে কেউ থাকবে না ।সময় থাকতে আল্লাহ্‌র পথে আসেন। যত গুনাহ করছেন আল্লাহ্‌র কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করেন ইনশাআল্লাহ আল্লাহ্‌ ক্ষমা করে দিবেন। হে আল্লাহ্‌ ঐ কঠিন বিপদের আপনি আমাদের ক্ষমা করে দিয়েন আমিন। প্লিজ একটু শেয়ার করুন